রোববার, ১২ জুলাই ২০২০ ২৮শে আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

Bangladesh Total News

একবার আমাকে নির্বাচিত করুন, আগামীতে আপনাদের স্বর্নালী দিন উপহার দিবো : মোহাম্মদ নুরুল আলম

প্রকাশের সময় : ১৯ মার্চ, ২০২০ ৮:২৩ : অপরাহ্ণ

নিজস্ব প্রতিবেদন : আজ আমরা মুখোমুখি হয়েছি ১৯নং দক্ষিণ বাকলিয়া ওয়ার্ডের আওয়ামী লীগের মনোনীত কাউন্সিলর প্রার্থী জনাব মোহাম্মদ নুরুল আলম(মিয়া)’র সাথে। যুবলীগের রাজনীতি থেকে উঠে আসা এই তরুণ নেতার হাতে দেয়া হয়েছে আওয়ামী লীগের টিকিট। আত্মবিশ্বাসী এই নেতা বিজয়ী হওয়ার বিষয়ে শতভাগ আশা ব্যক্ত করেছেন।আলাপনের শুরুতেই তিনি ওয়ার্ডবাসীকে অন্তরের অন্তঃস্থল থেকে সালাম ও শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। আর কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা’র কাছে, তার মতো একজন নগণ্য মুজিব আদর্শের সৈনিককে কাউন্সিলর পদে মনোনয়ন দেওয়ার জন্য। সাথে সাথে এলাকার আওয়ামী লীগ, ছাত্রলীগ, যুবলীগ, শ্রমিক লীগসহ মুজিবীয় আদর্শের প্রতিটি সৈনিককে, যাদের অনুপ্রেরণায় ও সমর্থনে কাউন্সিলর পদে ভোটযুদ্ধে অবতীর্ণ হয়েছেন।

সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচনে কেন তিনি প্রার্থী হয়েছেন এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, সারাদেশে উন্নয়নের জোয়ার বইলেও এই ১৯নং ওয়ার্ডে কাউন্সিলর বিরোধী দল বিএনপি’র সমর্থিত হওয়ায় এই ওয়ার্ডে যেটুকু ‍উন্নয়ন হওয়ার কথা ঠিক ততটুকু হয়নি বলে আমি মনে করি। অবহেলিত এই ১৯নং ওয়ার্ড দক্ষিণ বাকলিয়ায় উন্নয়নকে আরো ত্বরা্ন্বিত করতে ও গনমানুষের আশা-আকাংখার প্রতিফলন ঘটাতে আমার প্রিয় দল বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের নির্দেশ মোতাবেক নির্বাচনে অংশ নিয়েছি। বঙ্গবন্ধু কন্যা ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, যখন দেশকে উন্নয়নের মহাসড়কে চালিয়ে নিচ্ছেন তখনও এই অবহেলিত ১৯ নং ওয়ার্ডের উন্নয়ন হয়েছে অপেক্ষাকৃত কম।এজন্য আমি বর্তমান কাউন্সিলরের অবহেলা, অজ্ঞতা ও অদূরদর্শীতাকে দায়ী করি। আগামীতে উন্নয়নের জোয়ার বয়ে দিয়ে সাথে সাথে ওয়ার্ডকে ঢেলে সাজিয়ে ও সুপরিকল্পনা বাস্তবায়নের জন্য কাউন্সিলর পদে নির্বাচন করছি।

অপর এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, বর্তমান কাউন্সিলরের কারণে ওয়ার্ড অফিসে স্বজনপ্রীতির চারাগাছটি দিনে দিনে অনেক বড় হয়ে গিয়েছে। ফলে প্রত্যাশার চাইতে অপ্রত্যাশিত সংবাদ ও ভোগান্তিগুলো সাধারণ মানুষদেরকে অপেক্ষাকৃত চাপে রেখেছে। আমি আপনাদের মাধ্যমে এলাকার ভোটারদের আশ্বস্থ করতে চাই যে, ন্যায্যতার ভিত্তিতে ও স্বজনপ্রিয়তাহীন এই ওয়ার্ড পরিচালিত হবে। একইসাথে তিনি বলেন, গরিব ছাত্র-ছাত্রীদের শিক্ষার আলোতে আলোকীত হতে ব্যাক্তিগত ও বিভিন্ন সংস্থার সমন্বয়ে কাজ করে যাবো। একইসাথে তিনি বলেন, আমার এলাকায় প্রচুর নিম্ন ও নিম্নমধ্যবিত্ত আয়ের জনসাধারণ হওয়াতে তাদের স্বাস্থ্য সেবা পা্ওয়ার ক্ষেত্রে সহযোগিতা অব্যাহত রাখবো।

যুবসমাজে মাদকের বিস্তার, ভূমি দখল ও কুশাসন সম্পর্কিত কথোপকথনে বলেন, যুবকরাই হচ্ছে বাংলাদেশের প্রাণশক্তি। যুবসমাজ ব্যতীত লক্ষ্যমাত্রায় পৌছানো একটু দুরূহ। তাই যুবদের জন্য সরকারী-বেসরকারী কর্মদক্ষতা সম্পন্ন নাগরিক গড়ে তোলাই আমার স্বপ্ন। আমি আমার এলাকার যুবসমাজকে প্রশিক্ষিত ও দক্ষ জনশক্তি হিসেবে গড়ে তুলতে চাই। যেহেতু আমি রাজনীতি করি মাদকের বিক্রয় ও গ্রহণকারীদের সম্পর্কীত  তথ্য আমার জানা আছে।আমি যদি নির্বাচীত হই, মাদককে উৎপাটন করার জন্য আইনসম্মতভাবে ও সামাজিক উদ্বুদ্ধকরণে সাধ্য ও সামার্থ্যে দিয়ে কাজ করবো।কুশাসনের কারণে সমাজে অন্যায্যতার বলয় বাড়ে।

ভোটের দিনের পরিস্থিতি প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আমরা ইতিমধ্যে ব্শ্বিস্থ সূত্র হতে জানতে পেরেছি একটি কুচক্রী মহল এই ওয়ার্ডে ভোটের দিন কেন্দ্র দখল করে একটি ভীতিকর পরিবেশ সৃষ্টির মাধ্যমে আগামী ২৯ শে মার্চকে একটি কলংকিত দিন হিসেবে চিহ্নিত করে নির্বাচন কমিশনকে প্রশ্নবিদ্ধ করার অপচেষ্টা করছেন। তবে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা কঠোরহস্তে এই অপকর্ম দমন করবে বলে আমি মনে করি। ১৯ নং ওয়ার্ডকে তিনি দেখতে চান অসম্প্রদায়িক চিন্তা-চেতনার একটি লালনভূমি। উন্নয়নের একটি মডেল।

নির্বাচনের প্রচারের অংশ ও ব্যাক্তিগত বার্তায় তিনি বলেন, আমি বিটিনিউজের মাধ্যমে আমি ১৯নং ওয়ার্ডের ভোটারদের উদ্দেশ্যে বলতে চাই যে, আমি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের একজন কর্মী হিসেবে বিগত ১৫ বছর অত্র এলাকার জনসাধারণের  সাথে সুখে-দুঃখে, আনন্দ-বেদনায় পাশেই ছিলাম। এখনও আছি, আগামীতেও থাকবো। আপনাদের সেবা করার উদ্দেশ্যে গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ার অংশ হিসেবে ভোটের মাধ্যমে একজন নির্বাচিত প্রতিনিধি হয়ে আপনাদের সেবায় নিজেকে নিয়োগ করতে চাই। আমার নির্বাচনী প্রতীক মিষ্টি কুমড়া্। একটিবার আমাকে আপনাদের সেবা করার সুযোগ দিন। আমি আগামীতে আপনাদের স্বর্নালী  দিন উপহার দিবো।আর বিগত সময়ে আামার অজান্তে কোন ত্রুটির কারণে ১৯ নং ওয়ার্ডের কেউ কষ্ট পেলে আমাকে ক্ষমা করে দিবেন।সকলের জন্য শুভকামনা করছি।২৯শে মার্চ সকাল হতে মেয়র পদে নৌকা প্রতীকে ও কাউন্সিলর পদে মিষ্টি কুমড়া প্রতীকে ভোট প্রদানের জন্য ১৯ নং দক্ষিণ বাকলিয়া ওয়ার্ডবাসীকে উদাত্ত আহবান জানাই।


ট্যাগ :

আরো সংবাদ