মঙ্গলবার, ২ মার্চ ২০২১ ১৭ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

Bangladesh Total News

যে কারণে চসিক নির্বাচনে জয়ী হলেন মুক্তিযোদ্ধা রেজাউল করিম চৌধুরী

প্রকাশের সময় : ২৭ জানুয়ারি, ২০২১ ৬:৪৯ : অপরাহ্ণ

বিগত বছরের প্রারম্ভে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে যখন আওয়ামী লীগ প্রার্থীদের মনোনয়ন চাওয়া হয় তখন যে  কয়েকজন প্রার্থী দলীয় মনোনয়ন চেয়েছিলেন তার মধ্যে জনাব রেজাউল করিম চৌধুরীর নাম বেশ নিচের সারিতে ছিল।কিন্তু প্রার্থী বাছাইয়ে জটিলতার  সৃষ্টি হলে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আওয়ামী লীগের দুর্দিনের ত্যাগী নেতা বীর মুক্তিযোদ্ধা রেজাউল করিম চৌধুরীকে মনোনয়ন দেন।বিগত বছরে আমরা উনার একটি সাক্ষাৎকার নিয়েছিলাম। শিক্ষা অনুরাগী ও সাদামাটা মনের এই মানুষটিকে খুব কাছাকাছি দেখেছিলাম, কখনো উচ্চাভিলাষী মনে হয়নি  উনাকে।সারাজীবন আওয়ামীলীগের রাজনীতির জন্য নিজের স্বার্থ বিসর্জন দিয়েদেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাই সঠিক রত্নকে পছন্দ করেছিলেন। রেজাউল করিম চৌধুরী ক্লিন ইমেজের ব্যক্তি, গ্রুপিং ,সন্ত্রাস বা চাঁদাবাজির কোন কলঙ্ক তাকে কলঙ্কিত করতে পারেনি। এছাড়াও গত দুই সপ্তাহ যাবত মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায়  আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ও কেন্দ্রীয় নেতাদের উদ্যোগে যে আভ্যন্তরীণ বিশৃঙ্খলা ছিল তা দূর করা হয়েছে, এ কারণে অনেকগুলো ওয়ার্ডে বিদ্রোহী প্রার্থী থাকা সত্বেও সবাই মেয়র পদে রেজাউল করিম চৌধুরীর  ভোট প্রার্থনা করছেন। রেজাউল করিম চৌধুরীর  জন্য আওয়ামী লীগের ওয়ার্ড পর্যায়ের প্রত্যেক নেতাকর্মী আন্তরিকভাবে কাজ করেছেন।

অপরদিকে, বিএনপির প্রার্থী ডাক্তার শাহাদাত হোসেনের পক্ষে অনেক গর্জন দেয়া হলেও শেষ পর্যন্ত নেতাকর্মীরা ভোটকেন্দ্রে যায়নি অথবা যেতে পারেনি।এটা বিএনপির নেতৃত্তের ব্যর্থতা। তারা তাদের ভোটারদের কেন্দ্রে নিতে পারেনি। তাদের এজেন্টদেরকে কেন্দ্রে পৌঁছাতে ব্যর্থ হয়েছে। অধিকাংশ বিএনপির সক্রিয় নেতা কর্মী স্বেচ্ছায় আত্মগোপন করেছে। তাছাড়া বিএনপির চট্টগ্রামের সিনিয়র কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ খুব একটা সিরিয়াসলি তাদের প্রার্থীকে বিজয়ী করার জন্য মাঠে নামেনি। যদিও ব্যক্তিগত ভাবে ডা: শাহাদাতের ইমেজ ও দলের তরুণ নেতা কর্মীদের কাছে আকাশচুম্বী জনপ্রিয়তা রয়েছে।
নতুন মেয়রের নির্বাচিত হওয়ার ক্ষেত্রে   আরো অবদান আছে  চসিক প্রশাসক জনাব খোরশেদ আলম সুজনের ।বিগত কয়েক মাস তিনি  অক্লান্ত পরিশ্রম করে চট্টগ্রাম শহরের সবগুলো রাস্তা সংস্কার করেছেন। জনমনে সিটি কর্পোরেশনের উপর স্বস্তি ফিরিয়ে এনেছেন।
মুক্তিযুদ্ধের রণাঙ্গনের বীর সৈনিক রেজাউল করিম চৌধুরী বন্দরনগরীর মেয়র হিসেবে নিজের দক্ষতা ও যোগ্যতার  স্বাক্ষর রেখে এই শহরকে আরো নান্দনিক করে তুলবেন এটাই   কামনা করছি।

 


ট্যাগ :

আরো সংবাদ