শুক্রবার, ৫ মার্চ ২০২১ ২০শে ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

Bangladesh Total News

ফটিকছড়ির মাঘের মেলার অন্যতম আকর্ষণ মূলা

প্রকাশের সময় : ২৪ জানুয়ারি, ২০২১ ২:৫০ : পূর্বাহ্ণ

মোহাম্মদ রফিকুল ইসলাম,ফটিকছড়ি:চট্টগ্রামের ফটিকছড়িতে হযরত গাউছুল আজম মাইজভাণ্ডারীর ১০ মাঘ ওরশ শরীফ উপলক্ষে বিশাল এলাকা জুড়ে বসে মেলা। যা মাঘের মেলা হিসেবে পরিচিত। এ মেলার অন্যকম আকর্ষণ হচ্ছে মূলা। স্থানীয় ও আশেপাশের এলাকা থেকে চাষীরা তাদের উৎপাদিত বড় বড় আকারের মূলা(স্থানীয় ভাষায় জাপানি মূলা) মেলায় বিক্রি করার জন্য নিয়ে আসে। কারণ মেলায় মূলা ভাল বিক্রি হয়।সে ধারাবাহিকতায় এ বছরও হযরত গাউছুল আজম সৈয়দ আহমদ উল্লাহ মাইজভান্ডারী(ক.) এর বার্ষিক ওরশ শরীফ কে কেন্দ্র করে ফটিকছড়ির মাইজভান্ডার এলাকায় বসেছে সাপ্তাহব্যাপী গ্রামীন বা লোকজ পণ্যের মেলা। আর এ মেলার এ বছরও অন্যতম আর্কষণ হলো মূলা।
সরেজমিনে নাজিরহাট থেকে শুরু করে মাইজভান্ডার শরীফ মেলা র্পযন্ত মূলা বিক্রি চোখে পড়ার মত। এক একটি মূলা দুই তিন হাত র্পযন্ত লম্বা ও ১০/১২ কেজি ওজনের পর্যন্ত হয়। আগত আশেক ভক্তরা মাইজভাণ্ডার শরীফ এলাকার মূলা সবজি হিসেবে এবং হযরত গাউছুল আজম মাইজভাণ্ডারীর দরবারে মাংস মূলা তবরুকের বিশেষ প্রচলন থাকায় নিয়ত করে এই মূলা নিয়ে যায় আশেক ভক্তগন।
মূলা ক্রয় কারী আলি নেওয়াজ বলেন, প্রতিবছর ওরশ শরীফে আসলে মূলা নিয়ে যায়। মূলা গুলো খেতে অনেক ভাল। মূলা ক্রয়কারী এয়াকুব বলেন,মাইজভান্ডার শরীফের মূলা হিসেবে প্রতিবছরই ওরশ শরীফে আসলে নিয়ে যায় এবং এ মূলা নিয়ত করে আমরা খায়।

বিক্রেতা পারভেজ বলেন, আমরা সারা বছরই আশা থাকি ১০ মাঘের মেলার জন্য। কারণ মেলায় ভাল বিক্রী হয় মূলা। এ লোকজ মেলায় দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে বিভিন্ন ব্যবসায়ীরা মেলায় ব্যবসা করতে আসে। রকমারী খাবার, বিভিন্ন পণ্যের পসরা সাজিয়ে বসে। মেলায় পোষাক, খেলনা, প্রসাধনী সামগ্রীসহ গৃহস্থের প্রয়োজনীয় বাঁশ বেত, মাটির, লোহার তৈরী জিনিসপত্র পাওয়া যায়। তাই এলাকার বউ ঝিয়েরাও এই মেলার অপেক্ষায় থাকে ঘরের প্রয়োজনীয় সামগ্রী কেনার জন্য।


ট্যাগ :

আরো সংবাদ