রোববার, ২৪ জানুয়ারী ২০২১ ১০ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

Bangladesh Total News

চট্টলবীর এ বি এম মহিউদ্দিন চৌধুরী আজীবন বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও চট্টগ্রামের মানুষের জন্য নিজেকে উৎসর্গ করেছেন:তথ্যমন্ত্রী

প্রকাশের সময় : ৩১ ডিসেম্বর, ২০২০ ১১:২৪ : পূর্বাহ্ণ

ডেস্ক রিপোর্ট: মহান মুক্তিযুদ্ধ, মুক্তিসংগ্রাম, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের রাজনীতি, স্বাধীন বাংলাদেশ পূনর্গঠন, ক্ষুধা ও দারিদ্রমুক্ত বাংলাদেশ বিনির্মাণ, বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠায় এবং লালিত স্বপ্ন ডিজিটাল বাংলাদেশ গঠনে চট্টগ্রামের অবিসংবাদিত নেতা চট্টলবীর আলহাজ্ব এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীর অবদান কারও অজানা নয়। তিনি বাংলাদেশের রাজনীতিতে একজন আপোষহীন ও সাহসী রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বের নাম। পদ-পদবী, ক্ষমতা ও অর্থের মোহে চট্টলবীর আলহাজ্ব এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী কখনো নিজেকে বিলিয়ে দেন নি। আজীবন বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের রাজনীতি, বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও চট্টগ্রামের মানুষের জন্য নিজের জীবন উৎসর্গ করেছেন। জাতীয় মাসিক পত্রিকা মৌচাক পরিবারের সাথে মতবিনিময়কালে তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ এসব কথা বলেন।
জাতীয় মাসিক মুখপত্র মাসিক মৌচাক পরিবারের নেতৃবৃন্দের সাথে গতকাল ৩০ ডিসেম্বর বুধবার রাতে ঢাকাস্থ বাসায় গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের তথ্যমন্ত্রী ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ এমপি’র সাথে এক সৌজন্য সাক্ষাত ও মতবিনিময় অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় মৌচাক পরিবারের নিয়মিত প্রকাশনা ডিসেম্বর সংখ্যাটি চট্টলবীর এ বি এম মহিউদ্দিন চৌধুরী স্মারক সংখ্যা হিসেবে প্রকাশ করায় মৌচাক পরিবারের প্রতি তথ্যমন্ত্রী কৃতজ্ঞতা জানিয়ে বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে স্বপরিবারে হত্যার পর এ বি এম মহিউদ্দিন চৌধুরী সাহসী ও বীরত্বপূর্ণ প্রতিবাদের মধ্যদিয়ে চট্টগ্রাম থেকেই জীবনের ঝুঁকি নিয়ে বঙ্গবন্ধু হত্যার প্রতিবাদ করেন এবং বিভিন্ন মিছিল মিটিং করেন। তাঁর দুঃসাহসী এই ভূমিকা ইতিহাসে এক স্মরণীয় অধ্যায়। পরবর্তীতে তাঁর নিজ উদ্যোগে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের মাজার চিহ্নিত করে পাকাকরণ করেন। এর পরবর্তীতে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শাহাদাত বার্ষিকী ১৫ আগস্ট ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে বঙ্গবন্ধুর বাড়িতে মেজবানের আয়োজন করেন। যা ১৯৮০ সাল থেকে তাঁর মৃত্যুঅব্দি পর্যন্ত এই মেজবানের আয়োজন করেছেন। এটি তাঁর মৃত্যুর পরও তাঁর সুযোগ্য ছেলে শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেলের ব্যবস্থাপনায় চলমান রয়েছে। যা বাংলাদেশে আওয়ামী পরিবারের মাঝে এক ঐতিহাসিক কর্মকান্ড হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে। এ সময় মন্ত্রী আরো বলেন, চট্টলবীর আলহাজ্ব এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের রাজনীতির ইতিহাসে এক উজ্জ্বল নক্ষত্র ও সাহসী সিপাহশালার। চট্টলবীর আলহাজ্ব এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীকে স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী ২০২১ সালে মরণোত্তর স্বাধীনতা পদক প্রদান এখন সময়ের দাবি।
এসময় মৌচাক পরিবারের পক্ষে উপস্থিত ছিলেন উপদেষ্টা মাওলানা রবিউল আলম সিদ্দিকী, সম্পাদক স ম জিয়াউর রহমান, ইসলামিক ফাউন্ডেশন বোর্ড অব গভর্নর ড. মুফতি আল্লামা কফিল উদ্দিন সরকার সালেহী, আল কোরআন প্রচার সংস্থার প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান মুফতি আল্লামা খলিলুর রহমান জিহাদী, কেন্দ্রীয় ওলামা লীগ নেতা হাফেজ মাওলানা আকতার হোসেন ফারুকী প্রমুখ।


ট্যাগ :

আরো সংবাদ